বিএনপি ১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করে দুর্ভোগ সৃষ্টি করতে চাচ্ছে, অ্যাড কামরুল ইসলাম এমপি - বিডিসি ক্রাইম বার্তা
ArabicBengaliEnglishHindi

BD IT HOST

বিএনপি ১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করে দুর্ভোগ সৃষ্টি করতে চাচ্ছে, অ্যাড কামরুল ইসলাম এমপি


bdccrimebarta প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৫, ২০২২, ৬:৫১ অপরাহ্ন / ৫২
বিএনপি ১০ ডিসেম্বর সমাবেশ করে দুর্ভোগ সৃষ্টি করতে চাচ্ছে, অ্যাড কামরুল ইসলাম এমপি

কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ আসছে ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশ কে উদেশ্য করে আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি বলেছেন, আপনাদের উদ্দেশ্য খারাপ, আপনারা নয়াপল্টনে সমাবেশ করে ঢাকায় একটি জন দুর্ভোগ সৃষ্টি করতে চাচ্ছেন, অচল অবস্থা সৃষ্টি করতে চাচ্ছেন। আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে, অনেক সহ্য করেছি আপনাদের উদ্বুদ্ধপূর্ণ বক্তব্য, আপনারা যে সব মিথ্যাচার করছেন, জনগণকে যেভাবে ধোঁকা দিচ্ছেন, একটা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির যে পায়তারা করছেন সরকার তা মেনে নেবে না। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঘরে বসে থাকবে না, আপনাদের অবশ্যই দাওয়াত দানা জবাব দেওয়া হবে। আপনারা সুযোগ চাচ্ছেন কোনরকম একটি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে জিয়া- এরশাদের মত ক্ষমতায় আসতে, কিন্তু এটা আর হবেনা, পালাবার সুযোগ আপনারা পাবেন না, জনরোষের সামনে আপনারা পালাবার সুযোগ পাবেন না, যদি আবার আগুন সন্ত্রাস বা কোনরকম বা কোন রকম জন দুর্ভোগ সৃষ্টি করেন আপনারা পালাবার সুযোগ পাবেন না। তিনি আরও বলেন, পাঁচ বছরের একদিন আগেও ক্ষমতা ছাড়বেনা আওয়ামী, আপনারা যতই ষড়যন্ত্র করুন কোন লাভ হবেনা। ১০ ডিসেম্বর বিএনপিকে সমাবেশ করতে হলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই করতে হবে পল্টনে নয়। শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ঘাটারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত ৭১’সালে ২৫ নভেম্বর ঘাটারচরে পাক হানাদার বাহিনীর নৃশংস হত্যাজ্ঞের শিকার শহীদ বীরদের স্মরণে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান আইন করে শুধু পঁচাত্তরের খুনীদের রক্ষা করেনি তাদের বিদেশে দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়েছিল। জয় বাংলা নিষিদ্ধ করেছিল। দালাল আইন বাতিল করে একাত্তরের রাজাকারদের পুনর্বাসন করেছিল, শাহ আজিজকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছিল, গোলাম আজমকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে এনেছিলো আর বেগম খালেদা জিয়া নিজামীকে মন্ত্রী বানিয়েছে। এমনকি ২১ আগস্টের আগে হাওয়া ভবনে ২ বার মিটিং করেছে তারেক রহমান। আল্লাহর রহমত আছে বলে প্রধানমন্ত্রী আজও বেচে আছে আর বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আজকের এই দিন থেকে উত্তরণ কেবল শেখ হাসি নাই করতে পারে। আমাদের দুঃখ ৭১ যারা গনহত্যা করেছে তারা আজ দেশে রাজনীতি করে।তিনি আরও বলেন, জামাত- বিএনপি মুদ্রার এপিটওপিট, বাংলাদেশ আজ উন্নত জাতী, তারা আমাদের অর্জন গুলোকে ধ্বংস করে দিতে চাচ্ছে। বিএনপি কোন মতেই মুক্তিযুদ্ধে পক্ষের দল না। তাদের সাথে কিসের আলোচনা? কিসের সমোঝোতা? সমোঝোতা একটাই সরকারি দল এবং বিরোধী দল হবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দল। ৭১’ শহীদ পরিবার স্মৃতি সংসদের সভাপতি অ্যাড. এনামুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিম, সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন বিপ্লব, সহ সভাপতি শফিউল আজম খান বারকু, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক মহাসচিব আব্দুল জলিল ভূইয়া, শাক্তা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান প্রমুখ।#

bdccrimebarta