আঃ লীগের সভাপতি পদ চান জামায়াত নেতা - বিডিসি ক্রাইম বার্তা
ArabicBengaliEnglishHindi

BD IT HOST

আঃ লীগের সভাপতি পদ চান জামায়াত নেতা


bdccrimebarta প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৬, ২০২২, ৬:৩৬ অপরাহ্ন / ১১৭
আঃ লীগের সভাপতি পদ চান জামায়াত নেতা

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকা কাজ করা জিয়া পরিষদের নেতা মজিবর রহমান হতে চাচ্ছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি।কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যায়ের কাউকে পদ দিয়ে নেতা বানানোর আগে তার এবং পরিবার সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে দলীয় পদ দেয়ার নির্দেশনা সয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার থাকলেও সেই নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। এ কারনে কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যায়ে দেখা যায় অনুপ্রবেশকারীরা অর্থের বিনিময়ে দলে প্রবেশ করে বড় পদ বানিয়ে নিয়ে অবৈধ পন্থায় টাকা কামিয়ে আওয়ামীলীগের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন।

অবমুল্যায়ণ করছেন আওয়ামী লীগের প্রাণ হিসেবে পরিচিত তৃণমুলের নেতা কর্মীদের। আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী কয়েকজন নেতাকে ম্যানেজ করে অবৈধ পন্থায় আওয়ামী লীগে প্রবেশ করা এমন এক নেতার খোঁজ পাওয়া গেছে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার দরগ্রাম ইউনিয়নে। যিনি ২০০১ সাল থেকে ২০০৫ সালের বেশি সময় “জিয়া পরিষদ” সাটুরিয়া উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

ওই সময়ে, সাটুরিয়া উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালনা করেছেন জামায়াত ইসলামের মুখপাত্র হিসেবে পরিচিত দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকায়। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পাঁচ বছর পর ভোল পাল্টে জামায়াতের পত্রিকা পরিবর্তন করে এখন তিনি কাজ করছেন দৈনিক জনতায়। জেলার কয়েকজন নেতাকে ম্যানেজ করে সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদকের পদ বাগিয়ে নিয়েছেন তিনি।

সেই ব্যক্তির নাম, মজিবর রহমান।এই মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে রয়েছে চাঁদাবাজি, জালিয়াতি, মানবপাচার, ঘর-বাড়ি পোড়ানো ভাঙচুর, মানুষকে মিথ্যা মামলার দিয়ে হয়রানী করা সহ নারীদের সাথে অনৈতিক সম্পর্কের আরো প্রায় হাফ ডজনের বেশি অভিযোগে মামলা। যে মামলার কার্যক্রম আদালতে চলমান রয়েছে। এমন ব্যক্তি আওয়ামী লীগে সদস্য পদ পেয়ে এখন তিনি উপজেলার দরগ্রাম ইউনিয়নের সভাপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

আসন্ন দরগ্রাম ইউনিয়ন, আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি প্রার্থী হয়ে নিশ্চিত পদ পাচ্ছেন জানিয়ে তিনি আনন্দিত হলেও তৃণমুলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটো এবং মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আফসার উদ্দীন সরকারের ঘনিষ্ট হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীরা মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে মুখ খুলে কিছু বলতে সাহস পাচ্ছে না। তবে মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে যত অভিযোগের প্রমানপত্র মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের দিয়েছেন।

বিএনপির জিয়া পরিষদের, সাংগঠনিক পদে দায়িত্বে থাকার কথা অভিযুক্ত মজিবর রাহান অস্বীকার করে বলেছেন, আমি কখনো বিএনপি করিনি। আমি জাতীয় পার্টির সহযোগী সংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজের দরগ্রাম কলেজের সভাপতি ছিলাম। ওই সংগঠনের দলীয় মনোনয়নে দরগ্রাম কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস পদে নির্বাচন করেছেন বলে দাবী করেন তিনি। তবে জামায়াত ইসলামের মুখপাত্র দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকায় উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করার কথা তিনি স্বীকার করে বলেছেন যে কেউ পত্রিকায় কাজ করতে পারে।

এ ব্যপারে, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আফসার উদ্দিন সরকার বলেন, তৃণমুলের নেতাকর্মীদের ভোটে দরগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসী তাদের নেতা নির্বাচিত করবেন। তিনি বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে দেখবো যেসব প্রার্থী সম্মেলনে অংশগ্রহন করছে তারা পুর্বে জামাত বিএনপির রাজনীতি সাথে জরিত ছিল কিনা। অনুপ্রবেশকারী কোন বিতর্কিত ব্যক্তি থাকলে তাকে দরগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটিতে রাখা হবে না।

মানিকগঞ্জ জেলা, আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহিউদ্দীন বলেন, কাউকে পদ দিয়ে নেতা বানানোর আগে তার এবং পরিবার সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে দলীয় পদ দেয়ার নির্দেশনা রয়েছে দেশনেত্রী শেখ হাসিনার। জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক কমিটি গঠন করা হবে। জেলা আওয়ামী লীগের আরেক সিনিয়র সহ- সভাপতি এবং সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটো বলেন, জামায়াত- বিএনপি সমর্থিত কাউকে আওয়ামী লীগে এনে দলীয় পদ দেয়ার সুযোগ নেই। এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।

আওয়ামী লীগের, কেন্দ্রীয় কাযনির্বাহী কমিটির দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়– য়া বলেন, জামায়াত বা বিএনপি সমর্থিত কোন ব্যক্তি অবৈধ ভাবে আওয়ামী লীগে প্রবেশ করে দলীয় পদ বাগিয়ে নেওয়ার বিষয়টি লিখিত ভাবে জানালে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এইদিকে এলাকাবাসীর ও ইউনিয়ন থানা ও জেলার বিএনপি- জামায়েত জিয়া পরিষদের নেতা কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায় যে মুজিবল রহমান অনেক বছর যাব আমাদের দলে সাথে সম্পৃক্ত আছে।#

bdccrimebarta