ঋষি সুনাক : অভিবাসী পরিবার থেকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী - বিডিসি ক্রাইম বার্তা
ArabicBengaliEnglishHindi

BD IT HOST

ঋষি সুনাক : অভিবাসী পরিবার থেকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী


bdccrimebarta প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৫, ২০২২, ১০:৩০ অপরাহ্ন / ৪৭
ঋষি সুনাক : অভিবাসী পরিবার থেকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

বিডিসি ক্রাইম বার্তা ডেস্কঃ- যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে প্রথম কোনো ভারতীয় বংশোদ্ভূত এমনকি এশীয় ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন। এর আগের দফায় লিজ ট্রাসের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হেরে প্রধানমন্ত্রীত্বের দৌড়ে শেষ মূহূর্তে ছিটকে পড়েন কনজারভেটিভ পার্টির পার্লামেন্ট সদস্য ঋষি সুনাক। পরে ট্রাস পদত্যাগের ঘোষণা দিলে ফের তিনি প্রধানমন্ত্রিত্বের দৌড়ে ফেরেন।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে কনজারভেটি পার্টির কমিটির চেয়ারম্যান গ্রাহাম ব্র্যাডি ঋষি সুনাকের দলীয় প্রধান ও দেশের প্রধানমন্ত্রিত্বের তথ্য নিশ্চিত করেন। যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় সোমবার দুপুর ২ টার আগে অর্থাৎ শেষ সময়ে এসে ঋষি ‍সুনাককে সমর্থন জানিয়ে পনি মরড্যান্ড তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রত্যাহার করলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথ সুগম হয় সুনাকের। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ব্রিটানিকা ও মেট্রো নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের পরিচয় তুলে ধরেছে।

কে এই ঋষি সুনাক?৷ ঋষি সুনাক একটি অভিবাসী পরিবারের সন্তান। তাঁর দাদা- দাদী ভারতের পাঞ্জাব থেকে পূর্ব আফ্রিকায় চলে যান। সুনাকের বাবা কেনিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন এবং তাঁর মা তানজানিয়ার নাগরিক। ১৯৬০- এর দশকে সুনাকের দাদা ও নানার পরিবার দক্ষিণ ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে চলে আসেন। সাউদাম্পটনেই সুনাকের মা- বাবার পরিচয় ও বিয়ে হয়। ঋষি সুনাকের বাবা যশবীর সুনাক যুক্তরাজ্যে একজন চিকিৎসক ও মা ঊষা সুনাক ফার্মাসিস্ট হিসেবে কাজ করতেন। ১৯৮০ সালের ১২ মে যুক্তরাজ্যের হ্যাম্পশায়ারের সাউদাম্পটনের একটি হাসপাতালে জন্মগ্রহণ করেন সুনাক।

ঋষি সুনাক যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের লিংকন কলেজ থেকে দর্শন, রাজনীতি ও অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ফুলব্রাইট স্কলার হিসেবে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর (এমবিএ) করেন। পরে ২০০১ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত বিখ্যাত গোল্ডম্যান স্যাক্সে বিশ্লেষক হিসেবে কাজ করেন। তারপর তিনি হেজ ফান্ড ব্যবস্থাপক হিসেবেও কাজ করেন।

ঋষি সুনাক ২০১৫ সালে ইয়র্কশায়ারের রিচমন্ড আসন থেকে প্রথমবারের মতো পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন। থেরেসা মে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন তিনি স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। আর ২০১৯ সালে বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর তাঁর গুরুত্ব আরও বেড়ে যায়। সরাসরি পান অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব। বর্তমানে ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টিতেও জনপ্রিয় মুখ সুনাক। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সুনাক ব্রিটেনের অর্থমন্ত্রী হন।

ঋষি সুনাকের বিয়ে, সুনাকের আরেকটি পরিচয় হল তিনি ভারতের বিখ্যাত শিল্পপতি ও ইনফোসিসের প্রতিষ্ঠাতা এন আর নারায়ণ মূর্তির জামাতা। নারায়ণ মূর্তির কন্যা অক্ষতা মূর্তির সঙ্গে তাঁর আলাপ স্ট্যানফোর্ডেই, পরে তাঁরা দুজন বিয়ে করেন। ঋষি ও অক্ষতার ঘরে দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। তাদের নাম কৃষ্ণা সুনাক ও আনুশকা সুনাক। ভারতে মূলত স্ত্রী অক্ষতার মাধ্যমেই বেশি পরিচিত ঋষি সুনাক। সুনাকের ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খুশির খবরটি পেয়ে দিওয়ালির দিনে বাড়তি উচ্ছাস প্রকাশ করেছেন ভারতীয়দের অনেকেই।

কৃষ্ণা সুনক, আনুশকা সুনক, ঋষি সুনাকের কি ভাইবোন আছে? নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের দুই ছোট ভাই- বোন আছে। সুনাকের ভাইয়ের নাম সঞ্জয় এবং বোনের নাম রাখি। সঞ্জয় মনোবিজ্ঞানের একজন চিকিৎসক, অন্যদিকে রাখি নিউইয়র্কে জাতিসংঘের গ্লোবাল ফান্ডের কৌশল ও পরিকল্পনার প্রধান হিসেবে কাজ করেন।#

bdccrimebarta