1. mahadihasaninc@gmail.com : bdccrimebarta :
কলেজের সভাপতি ও অধ্যক্ষ'কে অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন - বিডিসি ক্রাইম বার্তা

শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:২৭ অপরাহ্ন

News Headline :
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে প্রবাসীর নির্মাণাধীন ভবনে ভাঙচুর লুটপাট ঘোড়াঘাটে এক বছরে ৪৮টি মামলায় ২০ লাখ টাকার মাদক জব্দ র‍্যাবের ৫০ কর্মকর্তা সদস্য; বিপিএম-পিপিএম পদক পাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ফেরামের কার্যালয় উদ্ভোধন ও মিলাদ অনুষ্ঠিত লালবাগ ভেলা সমাজকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে আলোচনা সভা পৌরসভা নির্বাচনে তথ্য গোপন ও ঋণ খেলাপির মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণায় তোলপাড় জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রায়াত ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদার স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভা ইরানের আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম হবিগঞ্জের হাফেজ বশির এ কেমন শ্রদ্ধাঞ্জলি জানালো পাগলা উচ্চ বিদ্যালয়! ময়মনসিংহে ১৪ মাসে ৪৭ খুন!
কলেজের সভাপতি ও অধ্যক্ষ’কে অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

কলেজের সভাপতি ও অধ্যক্ষ’কে অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টারঃ- শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নে ডাঃ মোসলেম উদ্দিন খান ডিগ্রি কলেজের গভনিংবডির সভাপতি আবদুল আলীম বেপারী এবং কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ দেলোয়ার হোসেনকে অপসারণের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল এবং মানববন্ধন করেছে জয়নগরবাসী। ১৬ নভেম্বর বুধবার সকাল ১০ টায় জয়নগরের ডাঃ মোসলেম উদ্দিন খান ডিগ্রি কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে। মিছিল টি জয়নগর বাজার প্রদক্ষিণ করে পুণরায় ডাঃ মোসলেম উদ্দিন খান ডিগ্রি কলেজের সামনে এসে শেষ হয়। পরে কলেজের সামনের রাস্তায় কয়েক হাজার নারী পুরুষ তাদের অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন করেন। মানববন্ধনে উপস্থিত জনগনের পক্ষ থেকে জয়নগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইসমাইল খান বলেন, ডাঃ মোসলেম উদ্দিন খান ডিগ্রি কলেজের গভনিংবডির সভাপতি আবদুল আলীম বেপারী এবং অত্র কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ দেলোয়ার হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন দুর্ণীতি, অর্থআত্মসাৎ, স্বজনপ্রীতি, নিয়োগ বাণিজ্য, এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের সাথে অনৈতিক আচরণ এবং কলেজের শিক্ষক- কর্মচারীর মধ্যে গ্রুপিং সৃষ্টি করে।কলেজটিকে একটি অকার্যকর প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছে। শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখতে আমরা অনতিবিলম্বে তাদের অপসারণ চাই। জয়নগরের প্রসিদ্ধ ইট ব্যবসায়ী মোকছেদ খান বলেন, ডাঃ মোসলেম উদ্দিন খান ডিগ্রি কলেজটি ১৯৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। কলেজটি প্রতিষ্ঠার পর দেলোয়ার হোসেন ১৯৯৫ সালে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসাবে নিয়োগ পান। তিনি কলেজের সর্বকনিষ্ঠ প্রভাষক হওয়া সত্ত্বেও ১৯৯৬ সালে তৎকালীন গভনিংবডি কে মোটা অংকের ঘুষ দিয়ে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের পদটি দখল করেন। তার ১ বছর পর অর্থাৎ ১৯৯৭ সালে তিনি অত্যান্ত সুকৌশলে কলেজের অধ্যক্ষ পদটি ব্যবস্থা করে নেন। তারপরই শুরু হয় শিক্ষক এবং কর্মচারীদের উপর তার অত্যাচার। আলীম বেপারী এবং দেলোয়ার হোসেন কলেজের কোন উন্নয়ন করেননি। বরং দু’জনে মিলে কলেজটি’কে লুটেপুটে খাচ্ছেন। তাই আমরা তার অপসারণ চাই। এ সময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন জয়নগর ইউনিয়নের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোক।#

Please Share This Post In Your Social Media


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2023 bdccrimebarta.com