র‌্যাবের অভিযানে ডাকাতের সর্দার সহ ২ সহযোগী গ্রেফতার - বিডিসি ক্রাইম বার্তা
ArabicBengaliEnglishHindi

BD IT HOST

র‌্যাবের অভিযানে ডাকাতের সর্দার সহ ২ সহযোগী গ্রেফতার


bdccrimebarta প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১১, ২০২২, ৮:১২ পূর্বাহ্ন / ৫০
র‌্যাবের অভিযানে ডাকাতের সর্দার সহ ২ সহযোগী গ্রেফতার

বনি আমিন, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ– পুলিশ ছদ্মবেশধারী ও আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের দুর্ধষ ডাকাত সর্দার জসিম মোল্ল্যা ও তার প্রধান দুই জন সহযোগীকে ঢাকার দক্ষিন কেরাণীগঞ্জ এলাকা হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব- ১০; পুলিশ পোশাক ও বিপুল সরঞ্জামাদি উদ্ধার। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাব নিয়মিত জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, অস্ত্রধারী অপরাধী, মাদক, ছিনতাইকারী সহ ডাকাতির বিরুদ্ধে ব্যপক অভিযান চালিয়ে আসছে। এছাড়া প্রতারণা ও জালিয়াতি দমন র‌্যাবের একটি গুরূত্বপূর্ণ ও চলমান অভিযান। র‌্যাবের এই অভিযান দেশের সকল মহলে প্রশংসিত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল ০৮ নভেম্বর ২০২২ খ্রিঃ তারিখ র‌্যাব- ১০ এর একটি অভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন ঢাকা- মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ ছদ্মবেশে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের দুর্র্ধষ ডাকাত সর্দার ও তার প্রধান ০২ সহযোগী’কে গ্রেফতার করে এবং অজ্ঞাতনামা ২/৩ জন ব্যক্তি কৌশলে পালিয়ে যায়। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের নাম ১। জসিম মোল্ল্যা (৩৫), পিতা- আইয়ুম মোল্লা, সাং চর- ধুপুরিয়া, ২। মোঃ জাহিদুল কাজি (২৫), পিতা- মৃত মোঃ জব্বার, সাং- পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর, উভয় থানা- জাজিরা, জেলা- শরিয়তপুর, ও ৩। মোঃ ইয়াসিন (৩০), পিতা মৃত- সাচ্চু মিয়া, সাং- মনুবেপারীর ঢাল, থানা- কেরাণীগঞ্জ মডেল, জেলা- ঢাকা বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে ০৩ টি স্বর্ণের চেইন, ০১ টি রুপার ব্রেসলেট, ০২ টি ল্যাপটপ, পুলিশের এসআই র‌্যাংক ব্যাজসহ ০২ টি হাফ শার্ট, ০২ টি প্যান্ট, ০২ টি ক্যাপ, ০২ টি বেল্ট, ০১ টি ওয়াকিটকি, ০২ জোড়া কালো বুট, ০১ টি রিফলেকটিং জ্যাকেট, ০২ টি রেইন কোর্ট, ০১ টি খেলনা পিস্তল (কালো কাভারসহ), ০১ টি চাপাতি, ০২ টি সুইচ গিয়ার চাকু, ০৩ টি লোহার ফোল্ডিং স্টিক, ০১ টি ড্রিল মেশিন, ০২ টি স্ক্রু ড্রাইভার, ০১ টি রেঞ্জ, ০২ টি হাতুরি, ০১ টি কাটার মেশিন, ০২ টি প্লাস, ০১ টি প্লাস কাটার, ০৬ টি লোহার রডের টুকরা, ০১ টি করাত, ০২ টি ছেনি কাটার, ০১ টি দুরবিন, ০১ টি ল্যান্ড ফোন, ০১ টি ডিজিটাল ওয়েট মেশিন, ০৩ টি মাউস, ০৫ টি কাটারের ব্লাড, ০১ টি বাংলাদেশ পুলিশ লিখিত লেমিনেটিং কাগজ, ০১ টি মহিলাদের ছদ্মবেশ ধারণের আলগা চুল, ০৫ টি মোবাইল ফোন ও নগদ- ৫৩,০৫০/- (তিপ্পান্ন হাজার পঞ্চাশ) টাকা উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। তারা বেশ কিছুদিন যাবৎ ঢাকা, নরসিংদী, শরিয়তপুর ও মুন্সিগঞ্জ সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় পুলিশি ছদ্মবেশে এবং ডাকাতির অভিপ্রায়ে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে স্বর্ণালংকার, টাকা ও অন্যান্য মূল্যবান সম্পদ ডাকাতি করত। এছাড়া তারা বড় বড় ব্যবসায়ীদের অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মোটা অংকের চাঁদা নিত এবং ডাকাতির কাজে কেউ বাধা প্রদান করলে বা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাদেরকে অস্ত্র দিয়ে হত্যা ও গুরুতর জখম করত।গ্রেফতারকৃত জসিম মোল্ল্যা উক্ত আন্তঃজেলা দুর্ধষ ডাকাত দলের সর্দার। তার নেতৃত্বাধীন উক্ত ডাকাত দল শরিয়তপুরের জাজিরা সহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় একটি ত্রাশের রাজত্ব কায়েম করে আসছিল। তারা সংঘবদ্ধ ভাবে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে ডাকাতি করাকালে কেউ বাধা প্রদান করলে জসিম মোল্যা তার সাথে থাকা দেশীয় অস্ত্র (সুইচ গিয়ার চাকু, চাপাতি, হাতুড়ি, লোহার রড ইত্যাদি) দিয়ে তাদেরকে গুরুতর জখম করে ডাকাতি কার্য সম্পন্ন করত। জসিম শরীয়তপুরের জাজিরা এলাকায় গত ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রিঃ তারিখে সংঘটিত চাঞ্চল্যকর রিপন হত্যা মামলার প্রধান আসামী। এছাড়া সে পুলিশের পোশাক পরিধন করে ভূয়া পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে বড় বড় ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে মোটা অংকের চাঁদা গ্রহণ করত। এতে কেউ চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে সে তার ডাকাত দল নিয়ে তাদের উপর অক্রমন করে তাদেরকে মারধর ও জখম করে তাদের সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যেত। জাজিরা এলাকায় সে ছিল এক মুর্তিমান অতংকের নাম। তার হীনকর্মে ঐ এলাকার লোকজন ভীত ও সন্ত্রস্থ থাকত। এছাড়া জসিম মোল্ল্যা (৩৫) এর বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় অস্ত্র, ডাকাতি, চাঁদাবাজি, ছিনতাই, প্রতারণা, মারামারি ও হত্যা চেষ্টাসহ মোট ১৩ টি মামলা রয়েছে যার মধ্যে ০১ টি মামলায় সে সাজাপ্রাপ্ত আসামী বলে জানা যায়। গ্রেফতারকৃত জাহিদুল ও ইয়াসিন ডাকাত সর্দার জসিম মোল্যার অন্যতম দুই জন প্রধান সহযোগী। তারা দেশের বিভিন্ন জেলা ও এলাকার বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন অর্থ- সম্পদশালী ও প্রবাসীদের বাড়ীর ঠিকানা সহ যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে ডাকাত সর্দার জসিম মোল্যাকে প্রদান করত। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে জসিম মোল্যা তার ডাকাত দল সহ ডাকাতি করত বলে জানা যায়। এছাড়া মোঃ জাহিদুল (২৫) এর বিরুদ্ধে অস্ত্র, ডাকাতি, চুরি ও হত্যা চেষ্টাসহ ০৪ টি মামলা রয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা রুজুর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।#

bdccrimebarta